• বৃহস্পতিবার, ০৩ ডিসেম্বর ২০২০, ০৮:১৮ অপরাহ্ন
  • বাংলা বাংলা English English
শিরোনাম:
মেসির ভাগ্য নির্ধারণ হবে আজ বাংলাদেশে নৌবাহিনী কলেজ, চট্টগ্রামে জাতীয় শোক দিবস উদযাপন ধর্মপাশায় জাতীয় শোক দিবস উপলক্ষে মিলাদ ও দোয়া মাহফিল করেছে আওয়ামী লীগের একাংশ ধর্মপাশায় জেলা ছাত্রলীগ নেতার করোনা মুক্তির জন্য দোয়া মাহফিল করেছে উপজেলা ছত্রলীগ ধর্মপাশা উপজেলা সদর ইউনিয়ন চেয়ারম্যান সেলিম আহমেদের সকল শহিদের প্রতি শ্রদ্ধা ধর্মপাশা উপজেলা আওয়ামী লীগের যুগ্ম সম্পাদক শামীম আহমেদ মুরাদের সকল শহিদের প্রতি শ্রদ্ধা ধর্মপাশার মধ্যনগরে ১৫০টি বন্যার্ত পরিবারের মধ্যে ত্রাণ বিতরণে হায়দার চৌধুরী লিটন নবীনগরে পবিত্র ঈদুল আযহা উপলক্ষে স্বপ্নজয়ী সংগঠন এর পক্ষ থেকে ঈদ উপহার বিতরণ,, সুনামগঞ্জের ধর্মপাশার জয়শ্রী ইউনিয়নে বন্যার্ত পরিবারের মধ্যে খাদ্যসামগ্রী বিতরণ দেশে গত ২৪ ঘন্টায় করোনায় মৃত্যু ৩৫ নতুন করে আক্রান্ত ৩০০৯ জন

মালয়েশিয়ায় করোনার জাল সনদ বিক্রি, দুই বাংলাদেশি গ্রেপ্তার

somoynews71.com / ৩৭ সময় দর্শন:
আপডেট: রবিবার, ২১ জুন, ২০২০

মালয়েশিয়ায় করোনাভাইরাসের জাল সনদ বিক্রির দায়ে দুই বাংলাদেশিকে গ্রেপ্তার করেছে দেশটির পুলিশ। গত শুক্রবার স্থানীয় সময় বিকেলে গোপন সংবাদের ভিত্তিতে রাজধানী কুয়ালালামপুরের দুটি দোকানে অভিযান চালিয়ে তাঁদের গেপ্তার করা হয়।

কুয়ালালামপুরের পুলিশ প্রধান দাতুক মাজলান লাজিম সাংবাদিকদের জানান, দুই সপ্তাহ ধরে সিন্ডিকেটের মাধ্যমে বিদেশি অভিবাসীদের কাছে ৫০ রিঙ্গিতের বিনিময়ে করোনাভাইরাসের নেগেটিভ রিপোর্ট (জাল সনদ) বিক্রি করে আসছে তারা।

পুলিশ প্রধান আরো জানান, এ গ্রুপের সদস্যরা ১২ হাজার টাকায় দোকান ভাড়া নিয়ে ও স্থানীয় দুজন নাগরিককে চাকরি দিয়ে কাউন্টারে রেখে প্রতিদিন দুপুর ১২টা থেকে রাত ৯টা পর্যন্ত এই অবৈধ ব্যবসা পরিচালনা করে আসছে। অভিযানে একটি জাল কোভিড-১৯ স্ক্রিনিং পরীক্ষার রিপোর্ট, লেটারহেড ও এক হাজার ৩৩১ মালয় রিঙ্গিত (২৬ হাজার ৫০০ টাকা) উদ্ধার করে পুলিশ। এ ছাড়া দুটি ল্যাপটপ, তিনটি প্রিন্টার, দুটি ল্যামিনেটিং মেশিন ও কোভিড-১৯ স্ক্রিনিং পরীক্ষার ফলাফলের দুটি কপি উদ্ধার করা হয়েছে।

পুলিশ প্রধান দাতুক মাজলান আরো জানান, কোভিড-১৯ স্ক্রিনিং পরীক্ষার ফলাফলের রিপোর্ট নকল করার বিষয়টি গুরুত্বের সঙ্গে দেখা হচ্ছে এবং অপরাধীদের বিরুদ্ধে কঠোর পদক্ষেপ নেওয়া হবে।

পুলিশ জানিয়েছে, গ্রেপ্তার ব্যক্তিদের বিরুদ্ধে সংক্রামক ব্যাধি প্রতিরোধ ও নিয়ন্ত্রণ ১৯৮৮-এর ২২ (ডি), দণ্ডবিধির ৪৬৮ ও ৪৭১ এবং ইমিগ্রেশন আইনের ৬ (১) (সি) এর অধীনে তদন্ত চলছে।


এই বিভাগের আরও খবর